চীনা মুদ্রায় বাণিজ্যিক লেনদেনের নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের

অব্যাহত ডলার সংকটের মুখে বাংলাদেশের ব্যাংকগুলোকে চীনের মুদ্রা ইউয়ানে অ্যাকাউন্ট খোলার অনুমোদন দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করেছে। খবর বিবিসি।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, ব্যাংকগুলোর অথরাইজড ডিলার শাখা চীনের সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের সাথে ইউয়ান মুদ্রায় ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবে। সাম্প্রতিক সময়ে তীব্র ডলার সংকটের কারণে বৈদেশিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বিকল্প মুদ্রা ব্যবহারের বিষয়টি আলোচনায় আসে।

বিশ্বের পাঁচটি দেশের মুদ্রাকে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল আ আইএমএফ ‘হাই ভ্যালু কারেন্সি’ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। চীনের ইউয়ান তাদের মধ্যে অন্যতম। আইএমএফ-এর কারেন্সি বাস্কেটে ইউয়ান স্বীকৃতি পেয়েছে ২০১৬ সালে। এরপর থেকে আইএমএফ-র পর্যালোচনায় মুদ্রা হিসেবে ইউয়ান আগের চেয়ে শক্তিশালী হয়েছে।

ডলার সংকটের মুখে স্থানীয় ব্যবসায়রী সম্প্রতি কেন্দ্রীয় ব্যাংককে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানায়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ব্যাংকগুলোকে বিষয়টি মনে করিয়ে দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পরপরই বাংলাদেশে বৈদেশিক মুদ্রার বাজার অস্থিরতার সম্মুখীন হয়।

বিশ্ববাজারে পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির কারণে অনেক ব্যাংক এখন ডলারের সংকটের মুখোমুখি হচ্ছে। দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ গত সপ্তাহে ৩৮বিলিয়ন ডলারের নিচে নেমে এসেছে যেখানে এক বছর আগে একই সময়ে এটি ছিল ৪৬ বিলিয়ন ডলারের বেশি।

সরকারি বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, আটটি বিদেশি মুদ্রায় বৈদেশিক বাণিজ্যিক লেনদন করার অনুমতি রয়েছে। এগুলো হলো- মার্কিন ডলার, কানাডিয়ান ডলার, অস্ট্রেলিয়ান ডলার, সিঙ্গাপুর ডলার, ইউরো, ব্রিটিশ পাউন্ড, সুইস ফ্রাঙ্ক এবং চীনা ইউয়ান বা রেনমিনবি।

Check Also

লিটারে ১৪ টাকা কমল সয়াবিন তেলের দাম

সয়াবিন তেলের দাম লিটারে ১৪ টাকা কমছে। এতে এক লিটারের বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম দাঁড়াবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.