Thursday , January 20 2022

সরকারি বিদ্যুৎ ব্যবহার করে চলে ব্যাডমিন্টন খেলা

শীতকালের জনপ্রিয় খেলা ব্যাডমিন্টন। প্রায় ২০০০ বছর আগে ঈসা (আ.)-এর জন্মের সময়ে প্রাচীন গ্রিসে এক বিশেষ ধরনের খেলার প্রচলন ছিল, যাতে প্রাচীন গ্রিকরা শাটলকক ব্যবহার করত। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এ খেলাটি পরবর্তী সময়ে পূর্বদিকের দেশগুলোর অধিবাসীরা পছন্দ করেন ও খেলা শুরু করেন। কালক্রমে এই ক্রীড়া রীতিটি পূর্বদিকের ব্রিটিশ, ভারত, চীন ও থাইল্যান্ডে ছড়িয়ে পড়ে।

উইকিপিডিয়ার তথ্য মতে, ঊনবিংশ শতাব্দীর মধ্যভাগে ভারতে নিযুক্ত ব্রিটিশ সেনা অফিসাররা এই খেলা উদ্ভাবন করেন। তাঁরা ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী খেলা ব্যাটলডোর ও শাটলককে একটি নেট যুক্ত করে এই খেলা চালু করেছিলেন। ব্রিটিশ গ্যারিসন নগরী পুনরায় এই খেলা বিশেষ জনপ্রিয় ছিল বলে এই খেলার অপর নাম পুনাই। ঊনবিংশ শতাব্দীর শেষভাগে এই খেলা ইংল্যান্ডে ব্যাপক প্রচার পায়।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো আমাদের দেশেও খেলাটি বেশ জনপ্রিয়। শীতকাল এলেই বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় এই খেলার আয়োজন করা হয়। যদি কেউ এই খেলাটি জুয়ার উদ্দেশ্যে না খেলে থাকেন তবে শুধু শরীরচর্চার উদ্দেশ্যে এই খেলা খেলাতে ইসলামী কোনো নিষেধাজ্ঞা নেই। শরীরচর্চার উদ্দেশ্যে খেলাধুলা (যা মানুষকে আল্লাহর ইবাদত ভুলিয়ে দেয় না) ইসলামে বৈধ। (আল ফিকহুল ইসলামী ওয়া আদিল্লাতুহু : ২৬৬২, ইমদাদুল আহকাম : ৪/৩৬৯)। তবে অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায়, অনেকে এই খেলাটি সেভেনআপ, পেপসি ইত্যাদির বাজিতে খেলে। বিষয়টি খালি চোখে অনেক হালকা মনে হলেও, মূলত এটি জুয়া। জুয়া ইসলামে সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। শরীয়তের দৃষ্টিতে খেলাধুলা জায়েজ হওয়ার জন্য শর্ত হলো, তাতে কোনো অনৈসলামিক কার্যকলাপ থাকতে পারবে না। (ফাতাওয়ায়ে রহিমিয়া : ৭/২৭৭)

অন্যের বিদ্যুৎ ব্যবহার করে খেলা যাবে?
বেশির ভাগ মানুষ ব্যাডমিন্টন খেলেন রাতের বেলায়। যার জন্য বিদ্যুতের প্রয়োজন হয়। যার জোগান দেওয়া হয়, আশপাশের কোনো বাসা-বাড়ি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কিংবা সরাসরি সরকারি লাইন থেকে। কারো ব্যক্তিগত বিদ্যুৎ ব্যবহার করে ব্যাডমিন্টন খেলতে চাইলে অবশ্যই তার অনুমতি নিতে হবে। তা না হলে সেই বিদ্যুৎ ব্যবহার করা জায়েজ হবে না। কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কিংবা স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের বিদ্যুৎ ব্যবহার করতে চাইলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিতে হবে। (ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ১১/১৪০, আদ্দুররুল মুখতার : ৬/২০০)

সরাসরি সরকারি লাইন থেকে বিদ্যুৎ ব্যবহার
সরাসরি সরকারি লাইন থেকে বিদ্যুৎ নিয়ে ব্যাডমিন্টন খেলা আইনত দণ্ডনীয়। সরকারি আইন অনুযায়ী এভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহারের ক্ষেত্রে তিন বছরের কারাদণ্ড বা ৫০ হাজার টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে। (ডিপিডিসি)

তা ছাড়া এটি বিদ্যুৎ চুরির শামিল। আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, আবু হুরায়রা (রা.) সূত্রে নবী (সা.) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, চোরের ওপর আল্লাহর অভিশাপ হোক, যখন সে একটি হেলমেট চুরি করে এবং এ জন্য তার হাত কাটা হয় এবং সে একটি রশি চুরি করে এ জন্য তার হাত কাটা হয়।

আমাশ (রহ.) বলেন, তারা মনে করত যে হেলমেট লোহার হতে হবে আর রশির ব্যাপারে তারা ধারণা করত তা কয়েক দিরহামের সমমূল্যের হবে। (বুখারি, হাদিস : ৬৭৮৩)। অন্য হাদিসে ইরশাদ হয়েছে যে রাসুল (সা.) বলেন, মুমিন চুরি করার সময় ঈমানদার থাকে না। (মুসলিম, হাদিস : ১০৬)।

উল্লেখ্য, মানুষ কারো ব্যক্তিগত সম্পদ চুরি করলে, সে একজনের হক নষ্ট করল। কিন্তু কেউ যদি জাতীয় সম্পদ চুরি করে, সে গোটা জাতির হক নষ্ট করল, যা অত্যন্ত ভয়াবহ অপরাধ।

পাঠকের মন্তব্য:

Check Also

পুকুরে পড়ে নিহত দুই এসআই, গাড়িটি চালাচ্ছিলেন আসামি

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলায় পুলিশের সদস্য বহনকারী একটি প্রাইভেটকার পুকুড়ে পড়ে দুই উপপরিদর্শক (এসআই) নিহত হয়েছেন। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *