Friday , September 24 2021

নারীর ৮টি গোপন অঙ্গভঙ্গি যা একজন পুরুষকে পাগল করে

নারীর রূপের পূজারি পুরুষ। প্রতিটি পুরুষই চায় তার সঙ্গী অবশ্যই স্মার্ট এবং আকর্ষণী হবে। তাকে আকৃষ্ট করবে। আর নারীর কিছু আলাদা গুন আছে। যা একজন পুরুষকে তার দিকে আকৃষ্ট করার জন্য যথেষ্ট। সেই গোপন বিষয়গুলি একবার ঝালিয়ে নিতে পারেন।

১/ ধর্মীয় বিশ্বাস: নারী কতটা ধার্মিক তার চেয়ে সে ধর্মীয় অনুভুতি সম্পর্কে কতটা আস্থাশীল তার উপর একজন পুরুষের ওই নারীর প্রতি ভালোলাগার মাত্রা নির্ভর করে।

২/ সুগন্ধী: মহিলাদের শরীরের মিষ্টি সুগন্ধ পুরুষের আকৃষ্টতায় নেশা ধরায়। এটি বাধ্যতামুলন নয় যে, নারীকে কোন একটি পারফিউম ব্যবহার করতে হবে। নারীর women শরীরে প্রাকৃতিকভাবে যে গন্ধ থাকে, তা একধরনের প্রাকৃতিক অস্ত্র।

৩/ আত্মবিশ্বাস: পুরুষকে আকৃষ্ট করতে নারীর আত্মবিশ্বাসের বিকল্প নেই। যে নারী তার সৌন্দর্য্য এবং ব্যাক্তিত্ব নিয়ে আত্মবিশ্বাসী, পুরুষ তাকে ততটা বেশি পছন্দ করে। ৪/ হাস্যোজ্জলতা: সদা হাস্যোজ্জল নারীকে পুরুষ পছন্দের শীর্ষে রাখে। গোমড়ামুখো নারী পুরুষের প্রধান অপছন্দ।

৫/ সামান্য পিঠ খোলা: শুনতে বিশ্রী শুনাচ্ছে? আসলে পুরুষ নারীর পিঠ সামান্য খোলা অবস্থায় দেখতে পছন্দ করে। তবে অবশ্যই কাপড় থাকতে হবে। পিঠের কটি হাড্ডির উপর পর্যন্ত।

৬/ সঙ্গীর নাম ধরে ডাকা: অনেক পুরুষ তাদের স্ত্রীর মুখে তাদের নাম শুনতে চান। বিশেষ করে স্বামী-স্ত্রী একা থাকলে স্বামীর কানে ফিসফিস করে তার নাম উচ্চারন করে কথা বলা অনেক পুরুষের জন্য আনন্দদায়ক বিষয়।

৭/ বক্রাকার কোমর: পুরুষ নারীর কোমরের খাঁজ তথা কার্ভ দেখতে পছন্দ করে। নিতম্ব শরীরের সঙ্গে মানানসই হওয়া সৌন্দর্য্যের অন্যতম একটি আনুষাঙ্গিকতা। ৮/ পরিপাটি জামা-কাপড়: প্রত্যেক পুরুষই নারীর পরিপাটি সাজের আশিক। তবে তা অবশ্যই প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য মানের হতে হবে।

আরো পড়ুন
যেভাবে স্বামীর কাছে নিজেকে আরো আকর্ষণীয় করে তুলবেন

বিবাহিত জীবনে অনেক নারীর অভিযোগ তার স্বামী তাকে আগের মত ভালোবাসে না! এবং তার প্রতি তার স্বামী খুব একটা যত্নশীল না। রোমান্স পছন্দ করেনা এমন মানব পাওয়া দুষ্কর। আমাদের দেশের প্রায় ৬০% দাম্পত্য জীবনে রোমান্স নেই বললেই চলে। এমন অনেক স্বামী-স্ত্রী আছেন যারা মাসের মধ্যে প্রায় ৩০ দিনই ভালো ভাবে কথা বলেন না কিন্তু কথা ছাড়া শারীরিক সম্পর্কে জড়ান। স্বামী ভাবে এটা আমার খেত আমি আমার মত করে ফসল কাটব আর স্ত্রী ভাবে আমার কিছু করার নাই এটাই নিয়ম।

না আপনাদের ভাবনা সম্পূর্ণ ভুল দাম্পত্য জীবনে ভাল ভাবে উপভোগ করতে আপনার জীবনে রোমান্স খুবই জরুরী। আর এর জন্য যা করবেন। স্বামীর নিকট নিজেকে আকর্ষণীয় করতে প্রথমে যা করবেন তা হলে নিজেকে স্বামীর নিকট সব সময় খোলা মেলা উপস্থাপন করবেন না। এর ফলে আপনার স্বামী আপনার শরীরের প্রতি কিছুটা আগ্রহ হারিয়ে পেলবে। আমাদের দেশের বেশির ভাগ বউয়েরা এই ভুলটা করে থাকে যা মোটেও উচিৎ নয়।

আপনার স্বামী কর্মস্থল থেক আসলে তাকে আদর করে জড়িয়ে ধরুন তাকে বলুন সারা দিন তোমাকে অনেক মিস করেছি। আপনার এই আবেগ তাকে অনুপ্রাণিত করবে। বিশেষ দিনে তাকে কিছু গিফট করুন যেমন: মানি ব্যাগ, শার্ট, কলম, ইতাদি। দাম্পত্য জীবন শুধু মাত্র শারীরিক সম্পর্কের মধ্যে বন্ধি করে রাখবেন না এটাকে নিজেদের মত করে উপভোগ করুন রোমান্স করুন ভালোবাসুন। আপনাদের দুরুত্ত আপনাদের দূরে সরিয়ে রাখবে। মনে রাখবেন আপনার যৌন জীবনে অশান্তি মানেই আপনার জীবন তেজপাতা।

স্বামীর কাছে আকর্ষণীয় হবার উপায়
স্বামীর চোখে আকর্ষণীয় হয়ে উঠার জন্য কি করতে হয়? অনেক বেশি সাজগোজ বা ফিটফাট হয়ে থাকা নাকি খুব ভালো আচার আচরণ? হ্যাঁ, অবশ্যই ভালো আচার আচরণ মানুষের মনে অনেক প্রভাব ফেলে কিন্তু তারপরও ছোট কিছু কাজই স্ত্রীকে স্বামীর চোখে আকর্ষনীয় করে তুলতে পারে।

স্বামীর চোখে আকর্ষণীয় ও আবেদনময়ী হয়ে উঠতে খুবই সুন্দর হবার প্রয়োজন নেই, কেবল জানতে হবে কীভাবে নিজেকে আকর্ষণীয় করে তোলা যায়। জেনে নিন ৭টি টিপস।

১) আপনি দেখতে কতটা সুন্দর, তার চেয়ে জরুরি নিজেকে আপনি কীভাবে উপস্থাপন করেন। আপনি মোটা হলে এমন কাপড় পরবেন না, যাতে আরও মোটা দেখায়। রোগা হলে নিজেকে একটু মোটা দেখা যায় সেই চেষ্টা করুন। ছেলেরা ভরাট শরীরের নারী খুব ভালোবাসে। তাই একদম রোগা হবার চাইতে নিজেকে ভরাট শরীরের অধিকারী করে তুলুন। মোটা নারীরা ওজনটা একটু ঝরিয়ে শরীরটা শেপে নিয়ে আসুন।

২) নিজের গায়ের রঙ সম্পর্কে সচেতন হোন, সেটা যেমনই হোক মেনে নিন। এবং সেই হিসাবে সাজসজ্জা করুন। যেটা আপনাকে মানায়, সেটুকুই সাজুন।

৩) নিজেকে স্বামীর কাছে মোহনীয় করার জন্য হালকা সুগন্ধি ব্যবহার করবেন। এটা সেই জিনিস, যা মুহূর্তেই আপনাকে আবেদনময়ী করে তোলে।

৪) আকর্ষণীয় পোশাক পরুন। এমন পোশাক পরবেন না যা অশ্লীল, কিন্তু আপনার সৌন্দর্য যেন প্রকাশিত হয় সেটা লক্ষ্য রাখুন। ৫) সুন্দর করে হাঁটা, হাসা ও কথা বলা অভ্যাস করুন। এই একটি জিনিসই আপনাকে সবচাইতে বেশি আবেদনময়ী করে তুলবে।

৬) নিজের শরীরকে সুন্দর রাখুন অবাঞ্ছিত লোম পরিষ্কার করে। হাত পা নিয়মিত পরিষ্কার রাখুন। ৭) সুন্দর ভাবে খান। একই সাথে কিছু ছোট্ট আচরণ অভ্যাস করুন যেগুলো খুবই “কিউট”।

পাঠকের মন্তব্য:

Check Also

ত্রিশের পরেও তারুণ্য ধরে রাখুন

ত্রিশের পরেও তারুণ্য ধরে রাখুন

বয়স ত্রিশ পেরোনোর পর ত্বকে পরিবর্তন আসতে থাকে। তাতে কী! সচেতন থেকে যত্ন নিলেই এড়ানো …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *