Friday , January 21 2022

লজ্জাবতী গাছের লজ্জা পাওয়ার আসল কারণ কী?

ছোটবেলা হয়তো আমরা অনেকেই লজ্জাবতী গাছ দেখে ছুঁয়ে দিতাম তার পাতা নুয়ে পড়া দেখতে। আচ্ছা এই নুয়ে পড়ার কারণ কি? আমাদের সবারই মনে এই প্রশ্নটা কম-বেশি উঁকি দিয়েছে নিশ্চয়ই। তাহলে জেনে নেওয়া যাক লজ্জাবতী গাছের পাতা ছুঁলে নুয়ে পড়ার আসল কারণ।

আমরা অনেকেই হয়তো জানি, বিজ্ঞানী জগদীশ চন্দ্র বসু প্রমাণ করে দেখিয়েছেন গাছেরও প্রাণ আছে। আর গাছের যে অনুভূতি আছে, তা প্রমাণে লজ্জাবতীর পাতা উদাহরণ হিসেবে দেখানো হয়।

আসলে লজ্জাবতী পাতার গোড়ায় একটু ফোলানো থাকে। এই ফোলানো জায়গার ভেতরে অনেক কোষ থাকে। ওই সব কোষ যখন পানিভর্তি হয়ে ফুলে উঠে তখন লজ্জাপতী গাছের পাতার ডাঁটা সোজা হয়।

কিন্তু হঠাৎ পাতা ছুঁলে ফোলা কোষগুলো থেকে পানি বেরিয়ে পেছন দিকের কোষে চলে যায়। ফলে ফোলানো কোষগুলো চুপসে যায়। চুপসানো কোষে পানির চাপ কম থাকে বলে লজ্জাবতী পাতার ডাঁটা আর সোজা হয়ে থাকতে পারে না, নিচের দিকে নুয়ে পড়ে।

শুধু যে পাঁতা ছোয়া হয় সে পাতার ক্ষেত্রে এমন হয়, ব্যাপারটা ঠিক তা নয়। আস্তে আস্তে তা উপরে নিচে সব পাতার কোষে ছড়িয়ে যায় এবং এভাবে সব পাতা নুয়ে যায়।

বিজ্ঞানীরা পরীক্ষা করে দেখেছেন যে লজ্জাবতী পাতা স্পর্শ করলে সাথে সাথে তড়িৎ প্রবাহ হয়, যা পুরো গাছের শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। ‘অ্যাসিটাইল কেলিন’ জাতীয় এক প্রকার রাসায়নিক পদার্থের মাধ্যমে এই তড়িৎ প্রবাহ হয়।

এই রাসায়নিক পদার্থ খুবই দ্রুত এক কোষ থেকে আরেক কোষে যেতে পারে।

পাঠকের মন্তব্য:

Check Also

আরশি খান

বেশী সময় স্ত্রীর সাথে বিছানায় থাকার সেরা পদ্ধতি

পোষ্টটি তাদের জন্য যারা অধিক সময় ধরে মি’লন করতে পারেন না। অধিক সময় দরে করার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *