Tuesday , September 21 2021

দিনে ৫ বার অজুতে মুসলমানরা করোনায় কম সং’ক্র’মিত হয়েছেন : খ্রিস্টান গবেষক

যুক্তরাজ্যের করোনা মহামারীতে মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে সং’ক্রম’ণ তুলনামূলক কম হওয়ার কার’ণ খতিয়ে দেখতে শুরু করেছেন গবেষকরা। তারা বলছেন, দৈনিক ৫ ওয়াক্ত নামাজের প্রয়োজনে নিয়ম মতো হাত পরিষ্কার করার বিষয়টিকে ক’রো’না সং’ক্রম’ণ হ্রাসের অন্যতম কার’ণ বলে মনে করছেন তারা।

নিউক্যাসল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রিচার্ড ওয়েবার এবং লেখক ও লেবার পার্টির প্রাক্তন রাজনীতিবিদ ট্রেভর ফিলিপ্স’র একটি প্রতিবেদন অনুসারে, ‘যেসব অঞ্চলে করোনা সং’ক্রম’ণের আশ’ঙ্কা করা যেতে পারে, সেখানে মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে সং’ক্রম’ণের হার কম এবং সাংস্কৃতিক অভ্যাসগুলি ইংল্যান্ডের মুসলমানদের দ্রুত সং’ক্রম’ণ’ থেকে রক্ষা করতে পারে।’

ট্রেভর ফিলিপ্স টাইমস’র একটি নিবন্ধে লিখেছেন, ‘হয়তো এখানে প্রকাশ করা আবশ্যক; যদি ভা’ইরা’সের সং’ক্রম’ণ বন্ধ করার জন্য হাত ধোয়া একটি চাবিকাঠি হয়, তবে বিশ্বাসী সম্প্রদায়ের সদস্যরা যারা প্রার্থনা করার আগে দিনে ৫ বার নিয়মমাফিক হাত ধৌত করেন, তাদের কাছে আমাদের বাকী সবাইকে শিক্ষা দেয়ার জন্য কিছু থাকতে পারে?’

ক’রো’না সং’ক্রম’ণের বিষয়ে তিনি মন্তব্য করেছেন, ‘দারিদ্র্য যদি মূল নির্ধারক হয় তবে আমরা ব্রিটেনের পাকিস্তানি এবং বাংলাদেশি মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে ভা’ইরা’সটি প্রবলভাবে সং’ক্রামি’ত হওয়ার প্রত্যাশা করব’।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে যে, যুক্তরাজ্যের সংখ্যালঘু অশ্বেতাঙ্গ জনগোষ্ঠীর অঞ্চলগুলির বেশিরভাগই ক’রো’না ভা’ইরা’স হটস্পট জিসেবে চিহ্নিত, তবে এশিয়ান মুসলিম অঞ্চলগুলির বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তা ঘটেনি। তিনি মধ্য লন্ডনে টাওয়ার হ্যামলেটসের উদাহরণ দিয়ে বলেছেন, ‘যেখানে এক তৃতীয়াংশেরও বেশি মুসলিমের বাস এবং ক’রো’না ভা’ইরা’সের হটস্পট দিয়ে পরিবেষ্টিত, কিন্তু ক’রো’না সং’ক্রম’ণ থেকে মুক্ত বলে প্রতীয়মান হচ্ছে।’

ইল্যান্ডের অশ্বেতাঙ্গদের মধ্যে ক’রো’না সং’ক্রম’ণ বেশি হওয়ার বিষয়ে পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড’র তদন্ত প্রতিবেদেনে বলা হয়েছে, দেশটির ৩৪.৫ শতাংশ গু’রুত’র অসুস্থ রোগী সংখ্যালঘু সম্প্রদায়গুলি থেকে এসেছেন, যদিও তারা ইংল্যান্ডের জনসংখ্যার প্রায় ১৪ শতাংশ।

যুক্তরাজ্যের অভ্যন্তরীণ শহর বা শহুরে অঞ্চলের তালিকায় বিপুলসংখ্যক মুসলিম নাগরিক আছেন। তারা ভা’ইরা’সের সং’ক্রম’ণের মা’রাত্ম’ক ঝুঁ’কিতে আছেন অথচ এখনও সং’ক্র’মিত হননি। তালিকাতে লন্ডন এবং ম্যানচেস্টার, লুটন, ব্র্যাডফোর্ড, সøাও এবং লেসেস্টারের বিভিন্ন শহরও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

ট্রেভর ফিলিপ্স সেকারণে প্রশ্ন রেখেছেন, ইংল্যান্ডের ক’রো’না ভা’ইরা’স হটস্পটগুলিতে মুসলমানদের দিনে ৫ বার তাদের হাত ধোয়ার কঠোর নিয়মটি তাদের কম সং’ক্রম’ণের কা’রণ হতে পারে কিনা?

অবশেষে জার্মানিতে মানুষের শ’রী’রে ক’রো’নার ভ্যা’ক’সিন পরীক্ষার অনুমতি দিলো সেদেশের সরকার।

সুস্বাস্থ্যের অধিকারী ১৮ থেকে ৫৫ বছর বয়সী ২০০ মানুষের শ’রী’রে এই ভ্যা’কসি’ন পরীক্ষা করা হবে। ইউরোপের এই দেশটির ফেডারেল ইনস্টিটিউট ফর ভ্যা’কসি’নের বরাত দিয়ে এই খবর প্রকাশ করেছে যুক্তরাজ্যের দ্য ইনডিপেন্ডেন্ট।

এতে বলা হয়েছে, ভ্যা’কসি’নটি তৈরি করছে জার্মান বায়োটেক কোম্পানি ‘বায়োএনটেক’। এই ভা’ইরা’সের বি’রু’দ্ধে ভ্যা’কসি’নটির প্রতিরোধ’ সক্ষমতা বিজ্ঞানীরা এখন পরীক্ষা করবেন। প্রথম পর্যায়ে পরীক্ষাকৃত ২০০ ব্যক্তির পর ২য় পর্যায়ে আরও বেশি মানুষের ওপর এই ভ্যা’কসি’ন প্রয়োগ করা হবে। বিশেষ করে ক’রো’না ভা’ইরা’স আ’ক্রা’ন্তদের মধ্যে যারা বেশি ঝুঁ’কিতে আছেন তাদের উপরও প্রয়োগ হবে ভ্যা’কসি’নটি।

‘বায়োএনটেক’ কোম্পানি জানায়, তারা ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট ফিজারের সঙ্গে যৌথভাবে ভ্যা’ক’সিনটি তৈরি করছে। আর এই ভ্যা’কসি’নের নাম হচ্ছে বিএনটি-১৬২। যুক্তরাষ্ট্রেও বিএনটি-১৬২ ভ্যা’কসি’নটি পরীক্ষা করার কথা রয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য:

Check Also

করোনা মহামারি কবে বিদায় নিবে? যা বলছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

করোনা মহামারি কবে শেষ হবে তা বিশ্ববাসীর হাতেই রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *