Friday , January 21 2022

করোনা থেকে বাঁচতে ইউনিসেফ’র আট পরামর্শ, না মানলে বিপদ!

বিশ্বের ৭৯ দেশে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে তিন হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৯০ হাজারের বেশি মানুষ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাভাইরাস সম্পর্কে সতর্কতাও জারি করেছে।

এরইমধ্যে প্রতিবেশী দেশ ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী ধরা পড়েছে। তাই বাংলাদেশে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা রয়েছে। এ নিয়ে চীনা রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশকে সতর্ক করেছেন।

খালি চোখে না দেখা করোনাভাইরাসটি ইলেক্ট্রন মাইক্রোস্কোপের মাধ্যমে দেখতে হয়। ভাইরাসটি বড় হলেও সেটিকে প্রতিরোধ করা সম্ভব বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ শিশু তহবিল (ইউনিসেফ)। করোনা থেকে বাঁচতে সংগঠনটি আটটি পরামর্শ দিয়েছে।

• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক পাওয়া যাচ্ছে। মাস্ক ভাইরাসটিকে প্রতিরোধ করতে পারে। তাই মাস্ক ব্যবহার করুন।

• করোনাভাইরাস মাটিতে অবস্থান করে, এটি বাতাসে ছড়ায় না। তবে সতর্ক থাকতে হবে।

• কোনো ধাতব তলে বা বস্তুতে করোনা পড়লে প্রায় ১২ ঘণ্টা জীবিত থাকতে পারে। তাই সাবান দিয়ে হাত ধুলেই যথেষ্ট হবে।

• করোনাভাইরাস কাপড়ে ৯ ঘণ্টা জীবিত থাকতে পারে। তাই কাপড় ধুয়ে রোদে দুই ঘণ্টা রাখলে ভাইরাসটি মারা যাবে।

• করোনাভাইরাস হাত বা ত্বকে ১০ মিনিটের মতো জীবিত থাকতে পারে। তাই অ্যালকোহল মিশ্রিত জীবাণুনাশক হাতে মেখে নিলে ভাইরাসটি মারা যাবে।

• গরম আবহাওয়ায় করোনাভাইরাস বাঁচে না। ৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের তাপমাত্রাই ভাইরাসটিকে মারতে পারে। কাজেই ভালো না লাগলেও বেশি বেশি গরম পানি পান করুন। আইসক্রিম থেকে দূরে থাকুন।

• লবণ মিশ্রিত গরম পানি দিয়ে গারগল করলে গলা পরিষ্কার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে টনসিলের জীবাণুসহ করোনাভাইরাস দূর হবে। এছাড়া ফুসফুসে সংক্রমিত হবে না।

• করোনাভাইরাস প্রতিরোধে নাকে, মুখে আঙ্গুল বা হাত দেয়ার অভ্যাস পরিত্যাগ করতে হবে। কারণ, মানব শরীরে জীবাণু ঢোকার সদর দরজা হলো নাক-মুখ-চোখ।

আরো পড়ুন
করোনায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াবে কিছু ভেষজ

ঘরবন্দি এই সময়টায় নিজের ও পরিবারের সুরক্ষায় দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো জরুরি। এ ক্ষেত্রে রান্নাঘরে থাকা কিছু ভেষজ নিয়মিত খেলে বাড়বে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।

আপনার হাতের নাগালেই রয়েছে এমন কয়েকটি ভেষজ, যা নিয়মিত খেলে বাড়বে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।

তুলসী পাতা
তুলসী গাছের পাতা, বীজ, বাকল ও শেকড় সবকিছুই অতি প্রয়োজনীয়। ওষুধিগুণের এই তুলসী বিভিন্ন রোগ সারাতে ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে খুব ভালো কাজ করে।

ঠাণ্ডা-কাশি থেকে রক্ষা পেতে তুলসী পাতা ও আদার রসের সঙ্গে একটু মধু মিশিয়ে খেতে পারেন। এতে ঠাণ্ডা-কাশি ভালো হবে। এছাড়া ফুসফুসের দূর্বলতা, কাশি, কুষ্ঠ, শ্বাসকষ্ট, সর্দিজ্বর, চর্মরোগ, বক্ষবেদনা ও হাঁপানি, হাম, বসন্ত, কৃমি, ঘামাচি, রক্তে চিনির পরিমাণ হ্রাস, কীটের দংশন, কানব্যথা, ব্রংকাইটিস, আমাশয় ও অজীর্ণে তুলসী দিয়ে তৈরি ওষুধ বিশেষভাবে কার্যকর।

রসুন
জীবাণু ধ্বংস করতে রসুন খুবই কার্যকরি। এক কোয়া রসুন বেটে এক গ্লাস কুসুম গরম পানির সঙ্গে মিশিয়ে প্রতিদিন খেলে বাড়বে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।

হলুদ
প্রাচীনকাল থেকে বহু রোগ সারাতে হলুদের ব্যবহার হয়ে আসছে। যে কোনো রোগ থেকে দূরে থাকতে হলুদ মিশ্রিত চা পান করতে পারেন প্রতিদিন। আদা, হলুদ ও লেবু দিয়ে চা বানিয়ে নিন।

দারুচিনি
ঠাণ্ডা-কাশি সারাতে দারুচিনি বেশ কার্যকর। এক গ্লাস পানিতে মধু ও দারুচিনির গুঁড়া মিশিয়ে পান করুন প্রতিদিন।

লবঙ্গ
চায়ের সঙ্গে কয়েকটি লবঙ্গ মিশিয়ে নিন। এটি যেমন আপনাকে চনমনে রাখবে, তেমনি কাছে ভিড়তে দেবে না রোগবালাই। সূত্র: বোল্ডস্কাই

পাঠকের মন্তব্য:

Check Also

কাঁচা বাদাম

কাঁচা বাদাম কেন খাবেন? কাঁচা চিনা বাদামের উপকারিতা জেনে নিন

বাজারে অনেক রকমের বাদাম কিনতে পাওয়া যায়। তবে সবচেয়ে জনপ্রিয় বাদামটির নাম চিনাবাদাম। অন্যান্য বাদামের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *