Monday , September 20 2021

দ্রুত মেদ ও ভুড়ি কমাতে এক গ্লাস পানিতে এটি সেদ্ধ করে খান, হাতে-নাতে ফল পাবেন ১ সপ্তাহের মধ্যে।

বর্তমান দিনে মানুষের একটি সাধারণ সমস্যা হল মোটা হয়ে যাওয়া। সবার তাই এখন প্রধান উদ্দেশ্য রোগা হওয়া। রোগা হওয়ার জন্য মানুষ কিনা করছে। কেউ ছুটছে জিমে, প্রচুর টাকা খরচ করছে। কেউ আবার খাওয়া দাওয়া ছেড়ে ডায়েট করছে। ডাক্তার দেখিয়ে বহু ওষুধ খাচ্ছে, তবুও লাভ হচ্ছেনা কিছু। শরীরের মেদ যেমন ছিল তেমনই রয়ে যাচ্ছে। সঙ্গে শরীরে বাসা বাঁধছে নতুন নতুন রোগ।

অনেকে সারাদিন ভাত রুটি না খেয়ে ফল-মূল সবজি খেয়ে কাটায়। কিন্তু এরকম খাওয়া শরীরের পক্ষে একদম ভালো না। আমাদের দেশের আবহাওয়া অনুযায়ী আমদের ভাত ও রুটি সবই খাওয়া দরকার। না খেলে শরীর বেশি অসুস্থ হয়ে উঠবে।

কিন্তু এই সমস্যা থেকে মুক্তির উপায় কি? এর উপায় আছে আপনার ঘরেই। যার সাহায্যে কয়েকদিনের মধ্যেই আপনি শরীরের মেদ কমাতে পারবেন। আপনারা হয়তো ভাবছেন গরম জলে পাতি লেবু ও মধু মিশিয়ে খাওয়ার কথা বলছি। কিন্তু না, আপনি যদি এই কথা ভেবে থাকেন তাহলে ভুল ভাবছেন।

জিনিসটি হল দারুচিনি। এখন ডাক্তাররা লেবু ও মধুর বদলে দারুচিনি ও মধু খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন। গরম জলে দারুচিনি ও লেবু মিশিয়ে খান। এবার হয়তো ভাবছেন জলে দারুচিনি মেশাবেন কিকরে? তাহলে জেনে নিন পদ্ধতি …

প্রথমে একটি পাত্রে এক গ্লাস মতো জল নিন। তারপর সেটি ভালো করে ফুটিয়ে নিন। ফুটন্ত অবস্থায় সেই জলের মধ্যে কয়েকটা দারুচিনি ফেলে দিন। তারপর আবার ভালো করে ফুটিয়ে নিন। ভালো করে ফুটে গেলে সেটিকে নামিয়ে রেখে ঠান্ডা হতে দিন। ঠান্ডা হলে তাতে দুই চামচ মধু দিন। তারপর আপনার রোগা হওয়ার পানীয় তৈরী।

এটি একটি কার্যকরী উপাদান যা নিশ্চিত আপনার ভুড়ি কমাবে। তবে এই মিশ্রণটি আপনাকে রোজ খেতে হবে। আপনি এটি রোজ তিনবার খান। সকালে খালি পেটে, দুপুরে আর রাতে শোবার আগে অবশ্যই খান। এক সপ্তাহের মধ্যে আপনি নিজের চেহারার তফাৎ দেখুন আয়নায়। শুধু শুধু জিম, ডাক্তার, ওষুধের পিছনে টাকা খরচা না করে করুন এই কাজটি। ফল পাবেন হাতে নাতে।

এমন অনেক মোটা মানুষ আছেন যারা এই জিনিসটি খেয়ে ফল পেয়েছেন। আপনিও যদি স্লিম চেহারা নিয়ে সুন্দর দেখাতে চান তাহলে অবশ্যই এটি প্রতিদিন খান। আপনার চিন্তা দূর হবে এবং পরিশ্রম সার্থক হবে।

পাঠকের মন্তব্য:

Check Also

করোনা মহামারি কবে বিদায় নিবে? যা বলছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

করোনা মহামারি কবে শেষ হবে তা বিশ্ববাসীর হাতেই রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *