Wednesday , July 6 2022

‘জন্মের পর দেখা গেল মেয়ের চেহারা অবিকল সাব্বিরের মতো’

সিলেটে ১৭ মাস বয়সী শিশুকন্যাকে বালিশচাপায় হত্যার পর পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন ঘাতক মা নাজমিন আক্তার। এ সময় তিনি নিজেকে মানসিক রোগী হিসেবেও দাবি করেন।

নাজমিন গোলাপগঞ্জ উপজেলার কালিকৃষ্ণপুর গ্রামের জিয়া উদ্দীনের মেয়ে। স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় তিনি সিলেট মহানগরীর মেজরটিলা নিপোবন আবাসিক এলাকার ৪৯ নম্বর বাসায় ভাড়া থাকতেন। তিনি একটি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে শিক্ষকতা করতেন।

নাজমিন আক্তার বলেন, ‘আমি কাউকে ফাঁসাবো না। সাব্বিরকেও (তার স্বামী) ফাঁসাবো না। তাকে ফাঁসালেও সে অল্প শাস্তিতে পার পেয়ে যাবে। তার বিচার আল্লাহ করবেন। আমি আমার মেয়েকে খুন করেছি। আমার ফাঁসি হোক।’

‘বিয়ের পর আমার স্বামী বিদেশ চলে যায়। চার বছর সেখানে থাকা অবস্থায় সে আমার ভরণপোষণ দেয়নি। আমি স্কুলে শিক্ষকতা করে এবং টিউশনি করে চলেছি। পরে দেশে ফিরে আমাকে অনেক বুঝিয়ে আবার সংসার শুরু করে। তখন আমি গর্ভবতী হই। আমাকে গর্ভবতী রেখেই সে আবার কাতার চলে যায়।’

নাজমিন অভিযোগ করে বলেন, ‘বিদেশে গিয়ে সাব্বির অভিযোগ তুলে-আমার গর্ভের সন্তান তার নয়। আমি তখন ডিএনএ টেস্টের কথা বলি। কিন্তু সাব্বির ও তার পরিবার তা না করে আমার বিরুদ্ধে কুৎসা রটাতে থাকে। আল্লাহর কী রহমত! জন্মের পর দেখা গেল মেয়ের চেহারা অবিকল সাব্বিরের মতো। চোখ, ঠোঁট, মাথার চুল, হাসি সব একই রকম।’

‘সাব্বির ১৫ দিন আগে দেশে এসেছে। কিন্তু একবারও মেয়েকে দেখতে আসেনি। বরং আমার বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার করছে। এই দুঃখে আমি আমার মেয়েকে হত্যা করেছি।’

নাজমিন বলেন, ‘আমার তো সব শেষ। আমার জীবন নষ্ট করে দিয়েছে সাব্বির। আমাকে জিন্দা লাশ করে ফেলছে সে। তাই আমার মাথা কাজ করেনি। তার প্রতি ক্ষোভে-কষ্টে মেয়েকে বালিশচাপা দেই। আমি ইমোশন থেকে আমার বাচ্চাটাকে মেরেছি।’

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলী মাহমুদ বলেন, ‘পারিবারিক কলহ থেকেই এ হত্যার ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করা হচ্ছে। শিশুটির মা নাজমিন মেয়েকে হত্যার কথা প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছেন।’

এদিকে, হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সাব্বির আহমদ শাহপরাণ থানায় নাজমিন আক্তারকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে পুলিশ বৃহস্পতিবার নাজমিন আক্তারকে আদালতে সোর্পদ করলে তিনি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন।

Check Also

দুই স্ত্রীর দ্বন্দ্ব সইতে না পেরে মোটরসাইকেলে আগুন

মেহেরপুরে দুই স্ত্রীর দ্বন্দ্ব ও অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে, প্রকাশ্য নিজের মোটরসাইলে আগুন দিয়েছে বৈদ্যুতিক মিস্ত্রি। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.