Wednesday , July 6 2022

তিনি ‘জিনের বাদশা’, ধরা পড়লেন পাতিলসহ

‘জিনকে পাতিল বন্দী করা এবং অলৌকিক ক্ষমতার অধিকারী করার’ প্রলোভন দেখিয়ে কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে কথিত জিনের বাদশা জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কুমিল্লার দাউদকান্দির উপজেলার গৌরিপুর এলাকা থেকে তাকে পাতিল-কবজসহ গ্রেফতার করা হয়। জাকির হোসেনের বাড়ি বরিশাল জেলার বানারিপাড়া উপজেলার সলিয়াবাকপুরে। কুমিল্লা র‍্যাবের কোম্পানি কমান্ডার মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন শনিবার দুপুরে তার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ভুক্তভোগী আবুল খায়েরের ছেলে ‘জিনের বাদশার’ কাছে প্রতারিত হয়ে র‍্যাবের কাছে লিখিত অভিযোগ জানান। অভিযুক্ত জাকিরের নিজ বাসা থেকে শুক্রবার রাতে ‘জিন বন্দীর’ কাজে ব্যবহৃত বেশ কয়েকটি মাটির পাতিল ও তাবিজ-কবজ উদ্ধার করে র‍্যাব। এছাড়া জাকিরের বিরুদ্ধে ভুক্তভোগীর অজান্তে আবুল খায়েরের বড় মেয়েকে প্রভাবিত করে কাবিন ও সাক্ষী ছাড়াই বিয়ের অভিযোগ রয়েছে।

র‌্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জাকিরের কাছ থেকে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য। মূলত ১৯৯৫ সালে ঢাকা আসেন জাকির এবং দীর্ঘ ০৭ বছর বাসের হেলপার হিসেবে কাজ করেন। এরপর বিআরটিএ ও পাসপোর্ট অফিসে দালালের কাজ করতেন। পাশাপাশি চোরাই মোবাইলের কারবারও করতেন মুগদার একটি বাসায় থেকে।

ইতোমধ্যে ২০১৫ সালে চাঁদপুরের হাইমচরের নূরজাহানকে বিয়েও করেন। ২০২০ সালে করোনা মহামারী শুরু হলে তার সকল ব্যবসা বন্ধ হবার উপক্রম হলে সস্তায় সাবলেট বাসা নেন নারায়ণগঞ্জে। বিভিন্ন বই পড়ে এবং মাজারের ফকিরদের দেখে জ্বীন ও ঝাড়ফুঁক সম্পর্কিত বিভিন্ন ধারণা নিয়ে ওঝা সেজে বসেন অষ্টম শ্রেনী পাশ জাকির।

কোরআন শরীফ পড়তে না জানলেও আজগুবি সব মন্ত্র বলে ঝাড়ফুঁকের নাটক করতেন। আর বিভিন্ন মাটির পাতিল, প্রাণীর হাড়গোড় ইত্যাদি বস্তু ব্যবহার করে নাটকীয় কারবার করে ভুক্তভোগীদের প্রভাবিত করে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিলেন তিনি।

এতোদিন ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে বরিশালে ৫ তলা ফাউন্ডেশন দিয়ে বানিয়েছেন প্রসাদসম একটি বাড়ি। যার ১ম তলার ভিতর ও বাহির টাইলস করা সহকাজ সম্পন্ন করেছে এই টাকা দিয়ে। এমনকি ১ম ভুক্তভোগীর অজান্তেই তার বড় মেয়েকে জ্বীনের বিভিন্ন কথা বলে প্রভাবিত করে কোন ধরণের কাবিন ও সাক্ষী ছাড়াই গোপনে বিয়ে করেছেন তিনি! যেহেতু তার মূল বাড়ি সম্পর্কে কোন তথ্য ভূক্তভোগীদের নিকট ছিলোনা। তাই বাকি ২০ লক্ষ টাকা আদায় করে সে একে বারে নারায়নগঞ্জ ত্যাগ করে বরিশালে বসবাসের পরিকল্পনা করেছিলো।

Check Also

দুই স্ত্রীর দ্বন্দ্ব সইতে না পেরে মোটরসাইকেলে আগুন

মেহেরপুরে দুই স্ত্রীর দ্বন্দ্ব ও অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে, প্রকাশ্য নিজের মোটরসাইলে আগুন দিয়েছে বৈদ্যুতিক মিস্ত্রি। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.