Friday , September 24 2021

পঞ্চম বিয়েতেও স্ত্রী অনুমতি না দেওয়ায় বিয়ে পাগল স্বামীর কাণ্ড!

পঞ্চম বিয়েতে সম্মতি না দেওয়ায় চতুর্থ স্ত্রী সালমা বেগমকে (৩৫) কুপিয়ে হাতের আঙ্গুল কেটে দিয়েছে বিয়ে পাগল স্বামী মোকলেস মাতবর। পুলিশ বিয়ে পাগল মোকলেসকে গ্রেপ্তার করে আজ বুধবার (১১ আগস্ট) আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপজেলার পাতাকাটা গ্রামে।

পুলিশ ও আহত স্ত্রীর স্বজনরা জানায়, উপজেলার পাতাকাটা গ্রামের হাতেম আলী মাতবরের ছেলে মোকলেস মাতবর এ পর্যন্ত চারটি বিয়ে করেছেন। বিয়ে পাগল এই ব্যক্তি সর্বশেষ চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে চতুর্থ স্ত্রী হিসেবে পটুয়াখালী জেলার বোতলবুনিয়া গ্রামের মোনসেফ সিকদারের মেয়ে সালমাকে বিয়ে করেন। বিয়ে করার সময় স্ত্রী সালমাকে ৮ শতাংশ জমি লিখে দেয় স্বামী মোকলেস।

সম্প্রতি তিনি আবার পঞ্চম বিয়ে করার উদ্যোগ নিয়ে চতুর্থ স্ত্রীর কাছে সম্মতি ও তাকে দেওয়া জমি বিক্রি করে টাকা দাবি করেন। চতুর্থ স্ত্রী সালমা সম্মতি ও টাকা দিতে অস্বীকার করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে স্বামী মোকলেস স্ত্রী বাড়িতে না থাকার সুযোগে গত বৃহস্পতিবার রাতে নিজের ঘরের সিদ কেটে শ্বশুর বাড়ির দেওয়া সমুদয় মালামাল চুরি করে নিয়ে যান।

এরপর গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে স্ত্রী সালমা বাড়িতে এসে ঘরে মালামাল না পেয়ে স্বামী মোকলেসের কাছে জানতে চায়। তিনি এর কোনো উত্তর না দিয়ে বিয়ের সম্মতি, টাকা ও মালামাল নিয়ে কয়েক দফায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়ার সৃষ্টি হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে ওইদিন রাত আনুমানিক ১০টার দিকে স্বামী মোকলেস ক্ষিপ্ত হয়ে স্ত্রী সালমাকে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ডান হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলি কেটে বিচ্ছিন্ন করে দেয়।

সংবাদ পেয়ে স্বজনরা দ্রুত তাকে উদ্ধার করে রাত ১১টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মো. শাহাদাত হোসেন তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বর্তমানে সেখানেই তিনি ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। স্বজনরা ওইদিন রাতেই বিয়ে পাগল মোকলেসকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করেছেন।

এ ঘটনায় আজ বুধবার আহত স্ত্রী সালমার বাবা মোনসেফ সিকদার বাদী হয়ে মোকলেসকে আসামি করে আমতলী থানায় মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ তাকে ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ বুধবার দুপুরে উপজেলা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করলে আদালতের বিজ্ঞ বিচারক তাকে জেলহাজতে পাঠনোর নির্দেশ দেয়।

স্ত্রী সালমা বেগম মুঠোফোনে বলেন, আমার স্বামী আবার বিয়া করার জন্য আমার কাছে সম্মতি ও জায়গা-জমি বিক্রি করে টাকা চায়। আমি এতে রাজি না হওয়ায় আমাদের ঘরে থাকা সব মালামাল চুরি করে নিয়ে গেছে। আমি এর প্রতিবাদ করায় ধারাল অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আমার আঙ্গুল কেটে দিয়েছে। আমি এর বিচার চাই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন স্বজন বলেন, বিয়ে পাগল মোকলেস এ পর্যন্ত চারটি বিয়ে করেছেন। পুনরায় আবার বিয়ে করতে উদ্যোগ নেয়। এতে স্ত্রী সালমা সম্মতি না দেওয়ায় তাকে কুপিয়ে আহত করেছে। মোকলেসের এমন কার্মকাণ্ডে পরিবারের লোকজন অতিষ্ঠ হয়ে তাকে পুলিশে সোপর্দ করেছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. আবদুল মুনয়েম সাদ বলেন, সালমা বেগমের ডান হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলি কেটে ফেলেছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আমতলী থানার পরিদর্শক (ওসি) মো. শাহ আলম হাওলাদার মুঠোফোনে বলেন, স্ত্রীকে কুপিয়ে আঙ্গুল কেটে দেওয়ার ঘটনায় স্বামী মোকলেস মাতবরের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাকে আজ আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

পাঠকের মন্তব্য:

Check Also

যে সুখবর দিলেন শাবনূর, আসবেন লাইভেও।

নব্বই দশকের জনপ্রিয় নায়িকা শাবনূর। নিজের অভিনয় দিয়ে মাতিয়ে রেখেছিলেন ভক্তদের। ক্যারিয়ারের আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তার পরপরই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *