Wednesday , August 4 2021

ঘুম থেকে উঠে ভোরে মি”লন কমায় হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা, বলছে গবেষণা…

আমাদের জীবনে এরকম অনেক ঘটনাই ঘটে যার সঠিক কোনো ব্যখ্যা নেই। প্রায়ই খবরের কাগজে বা নেট দুনিয়ায় এরম অনেক খবর আসে যা শুনলে অবাকই হতে হয়। এরকমই চাঞ্চল্যকর খবর প্রকাশিত হয়েছিল কয়েকদিন আগে। আপনি কি খুব ভোরে ঘুম থেকে ওঠেন? আপনার কি বিয়ে হয়ে গেছে? তাহলে আপনার জন্য রয়েছে এই চাঞ্চল্যকর খবর।

খবরে বলা হয়েছে ঘুম থেকে উঠে ভোরবেলা যদি আপনি মি”ল’নে লিপ্ত হতে পারেন তাহলে আপনার হা”র্টঅ্যা’টাকের সম্ভবনা কমবে। কি শুনতে অবাক লাগছে তো? কিন্তু গবেষণা এরকমই তথ্য দিচ্ছে যে ভোরে ঘুম থেকে উঠে যৌ”ন সম্পর্কে লিপ্ত হলে তা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।

আমাদের শ’রী’রের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও এনার্জি বাড়িয়ে তুলতে মি”ল’ন যে অনস্বিকার্জ এমনটাই দ্বাবি করেছেন গবেষকরা। ভোরে রক্ত চলাচল খুব ভালো হয় আর যৌ”ন মি”লনের সময় রক্ত সরবারহ ভালো হয়, তাই এমন ধারনা করা হচ্ছে।

যৌ’ন মি”ল’ন শরীরের জন্য উপকারী এমনটাই বলা হচ্ছে। যৌ”ন মি”ল’ন দুশ্চিন্তা রোধ করে। এমনকি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রন করতে সহায়তা করে। নিয়মিত যৌ’ন মি”লন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এছাড়াও যৌ’ন মি”লন দুশ্চিন্তা রোধে সহায়তা করে।

এক সমীক্ষায় দেখা গেছে ২৪ জন পুরুষ ও ২২ জন মহিলাকে যাদের স্বাভাবিকের তুলানায় বেশি ঝামেলার কাজ দেওয়া হয় এবং তারা শা”রী’রিক মি”ল”নের সময় অনেক বেশি দুশ্চিন্তামুক্ত ছিল। দেখা গেছে সপ্তাহে একবার বা দুবার যৌ’ন মি”লন করলে অ্যান্টিবডির স্তর বৃদ্ধি হয় যা ঠান্ডা লাগা রোধ করে।

যৌ’ন মি”লনে হার্টঅ্যাটাকের আশঙ্কা কমে। একাধিক গবেষণায় প্রমানিত হয়েছে নিয়মিত শা”রী”রিক মি”ল’নে লিপ্ত হলে হার্টঅ্যাটাক ও স্ট্রো”কের আশঙ্কা হ্রাস পায়। গবেষণাপত্রে দেখা গেছে যারা সপ্তাহে ৩ বার মি”ল’ন করেন তাদের হা”র্টের স্বাস্থ্যের উন্নতি হয় আর মস্তিস্কে র’ক্ত সরবারহ বেড়ে যাওয়ার জন্য স্ট্রো”কের সম্ভবনা হ্রাস পায়।

এছাড়াও ভোরে উঠে মি”ল”ন আপনার পা’র্টনারের সাথে একটা ভালো দিন শুরু করার ক্ষেত্রে কাজে আসবে। আপনি সকালে উঠে মুড চাঙ্গা করার জন্য হালকা মিউসিক চালিয়ে এই কাজটি করতেই পারেন। এতে আপনি শা”রীরিকভাবে স্ট্রং হবেন আর আপনার দিনটিও ভালো যাবে।

আরো পরুনঃ
জেনে নিন, দেহের কোথায় তিল থাকলে কি হয়

আবার বাঁ হাতের পিছনের দিকে তিল থাকলে সেই ব্যক্তি কৃপণ প্রকৃতির হয়ে থাকেন৷

যে ব্যক্তির ডান হাতে তিল থাকে তারা প্রতিষ্ঠিত ও বুদ্ধিমান হন৷ বাঁ হাতে তিল থাকলে তারা ঝগড়াটে স্বভাবের হন ৷ শরীরের কোনও বিশেষ অংশে তিল থাকলে আপনার সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায় অনেকটাই৷ তবে তিল যে শুধু আপনার শারীরিক সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে তা নয়৷

তিলের অবস্থান থেকেও একজন মানুষের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করা যায়৷ অনেকে ভাবতে পারেন এটা নিতান্তই একটি কুসংস্কার ছাড়া আর কিছু নয়৷ কিন্তু প্রাচীন সমুদ্র শাস্ত্রে তিল দেখে ভাগ্য নির্ধারণের পদ্ধতি বর্ণনা করা রয়েছে৷ দীর্ঘ গবেষণার পরেই ভারতের পণ্ডিতেরা এই তত্ত্ব আবিষ্কার করেছেন৷

পুরুষের শরীরের ডান দিকে ও পুরুষের শরীরের বাঁ দিকে তিল থাকলে তা শুভ হিসেবে মনে করা হয়৷ পণ্ডিতেরা জানিয়েছেন শরীরে ১২টির কম তিল থাকা শুভ৷

যাদের ভ্রুতে তিল রয়েছে তাদের প্রায়ই ভ্রমণের যোগ রয়েছে৷ ডান ভ্রুতে তিল থাকলে কোনও ব্যক্তির দাম্পত্য জীবন সুখের হয়৷ বাঁচ ভ্রুর তিল দুখী দাম্পত্যের লক্ষণ৷

মাথার মাঝ খানে তিল নির্মল ভালসাবার প্রতীক৷ মাথার ডান দিকে তিল থাকলে তা কোনও বিষয়ে নৈপুণ্যের প্রতীক৷ আবার যাদের মাথার বাঁ দিকে তিল রয়েছে তারা অর্থের অপচয় করেন৷ মাথার ডান দিকে তিল ধন ও বুদ্ধির চিহ্ন৷ বাঁ দিকের তিল নারাশাপূর্ণ জীবনের সূচক ডান চোখে চিল থাকলে ব্যক্তি উচ্চবিচার ধারা পোষণ করেন৷ বাঁ চোখের তিল যাদের রয়েছে তাদের ভাবনা চিন্তা তেমন উন্নত নয়৷

যাদের চোখের মণিতে তিল থাকে তারা সাধারণত ভাবুক প্রকৃতির হন৷ চোখের পাতায় যাদের তিল রয়েছে তারা সাধারণত সংবেদনশীল হন৷

তবে যাদের ডানদিনেক চোখের পাতায় তিল রয়েছে তারা অন্যদের তুলনায় অতিরিক্ত সংবেদনশীল হয়ে থাকেন৷ যাদের কানে তিল রয়েছে তাদের আয়ু অনেক বেশি থাকে৷

নারী বা পুরুষের মুখমণ্ডলের আশেপাশে তিল তাদের সুখী ও ভদ্র হওয়ার ইঙ্গিত দেয়৷ মুখে তিল থাকলে ব্যক্তি ভাগ্যে ধনী হন ও তার জীবনসঙ্গী খুব সুখী হন৷

নাকে তিল থাকলে ব্যক্তি প্রতিভা সম্পন্ন ও সুখী হন৷ যে নারীর নাকে তিল রয়েছে তারা সৌভাগ্যবতী হন৷ যাদের ঠোঁটে তিল রয়েছে তাদের হৃদয়ে ভালবাসা ভরপুর৷ তবে ঠোঁটের নীচে তিল থাকলে সে ব্যক্তির জীবনে দারিদ্র বিরাজ করে৷

গালে লাল তিল থাকা শুভ৷ তবে গালে কোলে তিল অর্থহীনতার প্রতীক৷ কিন্তু ডান গালে তিল থাকলে ব্যক্তি ধনী হন৷ যে নারীর থুতনিতে তিল রয়েছে তারা সহজে লোকের সঙ্গে মেলামেশা করতে পারেননা৷ তারা সাধারণত একটু রুক্ষ স্বভাবের হয়ে থাকেন৷

ডান কাঁধে তিল থাকলে সেই ব্যক্তি দৃঢ়চেতা হন৷ যাদের বাঁ কাঁধে তিল রয়েছে তারা অল্পেতেই রেগে যান৷ যাদের হাতে তিল রয়েছে তারা চালাক চতুর হন৷ ডান হাতে তিল থাকলে তারা শক্তিশালী হন৷

আবার ডান হাতের পিছনে তিল থাকলে তারা ধনী হয়ে থাকেন৷ বাঁ হাতে তিল থাকলে সেই ব্যক্তি অনেক বেশি টাকা খরচ করেন৷

আবার বাঁ হাতের পিছনের দিকে তিল থাকলে সেই ব্যক্তি কৃপণ প্রকৃতির হয়ে থাকেন৷ যে ব্যক্তির ডান হাতে তিল থাকে তারা প্রতিষ্ঠিত ও বুদ্ধিমান হন৷ বাঁ হাতে তিল থাকলে তারা ঝগড়াটে স্বভাবের হন৷

যাদের তর্জনীতে তিল রয়েছে তারা বিদ্বান, ধনী ও গুণী হয়ে থাকেন৷ তারা বেশিরভাগ সময়েই শত্রু দ্বারা সমস্যায় জর্জরিত থাকেন৷ বৃদ্ধাঙ্গুলে যাদের তিল থাকে তারা কর্মঠ, সদ্ব্যলহার ও ন্যায়প্রিয় হন৷

মধ্যমায় তিল থাকলে ব্যক্তি সুখী হন৷ তাদের জীবন শান্তিতে কাটে৷ কনিষ্ঠ আঙুলে তিন থাকলে সেই ব্যক্তি জ্ঞানী, যশস্বী, ধনী ও অপরাজেয় হন৷

যে ব্যক্তির কোমরে তিল রয়েছে তাদের জীবনে সমস্যার আনাগোনা থাকে৷
নারীদের ডান দিকে বুকে তিল থাকা শুভ৷ এমন পুরুষও ভাগ্যশালী হন৷ বাঁ দিকের বুকে তিল থাকলে নারী অসহযোগি হন৷ বুকের মাঝখানের তিল সিখী জীবনের ইঙ্গিত দেয়৷

যে জাতকের পায়ে তিল রয়েছে তাদের জীবনে প্রচুর ভ্রমমের যোগ রয়েছে৷ ডান হাঁটুতে তিল থাকলে গৃহস্থজীবন সুখের হয়৷ বাঁ হাঁটুর তিল সংসারে অশান্তি ডেকে আনে৷

যে ব্যক্তির পেটে তিল রয়েছে তারা খুব পেটুক প্রকৃতির হয়ে থাকেন৷ মিষ্টি এই ধরণের মানুষের অত্যন্ত প্রিয়৷ তবে এরা অন্য কাউকে নিজের টাকায় খাওয়াতে একেবারেই পছন্দ করেননা৷

পাঠকের মন্তব্য:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *